• শিরোনাম

    শীতে যেসব খাবার বাচ্চাদের সুস্থ রাখবে

    মানচিত্র ডেস্ক | ১০ ডিসেম্বর ২০২০ | ২:০০ অপরাহ্ণ

    শীতে যেসব খাবার বাচ্চাদের সুস্থ রাখবে

    প্রতীকি ছবি

    বাচ্চাদের পুষ্টি ব্যাপারটাই ভীষণ ঝামেলার। মনের মতো না হলে অনেক কিছুই খেতে চায় না তারা। ঝোঁক বেশি ভাজাভুজি, জাঙ্ক ফুডের দিকে। ফলে, স্বাভাবিক ভাবেই সম্পূর্ণ পুষ্টি কখনোই পায় না ওরা। তার ওপর অণু পরিবারে মা-বাবা দু’জনেই কাজে ব্যস্ত। অবেক সময়েই বাচ্চার দেখভালও হয় না ঠিক মতো।

    তার থেকে নানা রকম রোগভোগ। সমস্ত ঋতুতেই বাচ্চাকে সুস্থ রাখতে তাই ওকে দিন এমন খাবার যা ওর রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়াবে। ভিটামিন সি রোগের সঙ্গে লড়াই করার ক্ষমতা বাড়ায়। একই সঙ্গে মেটায় পুষ্টির ঘাটতি। চনমনে রাখে কড়া ঠাণ্ডাতেও। সূত্র: এনডিটিভি ফুড বাংলা

    ১. ফল আর সবজি
    মৌসুমী সমস্ত ফল-সবজিতে থাকে রোগ প্রতিরোধের যাবতীয় উপাদান। থাকে ভিটামিন, মিনারেলস। যা শরীরকে সুস্থ রাখে। পুষ্ট করে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে তাই বাচ্চাকে প্রতিদিন ভিটিমিন এ ও ভিটামিন সি সমৃদ্ধ পেয়ারা, কমলালেবু, পেঁপে, বেরি, কুমড়ো, পেঁয়াজ, সবুজ পাতাওয়ালা সবজি খাওয়াতে হবে।

    ২. টকদই
    রোগ প্রতিরোধে টকদই দারুণ উপকারি। এর মধ্যে থাকা অ্যান্টি-ফাংগাল উপকরণ সর্দি-কাশি-জ্বরের মতো সংক্রমণ থেকে বাঁচায়। হজমের সমস্যা দূর করে। এর মধ্যে থাকে ভিটামিন সি। যা হাড়-দাঁত মজবুত করে।

    ৩. প্রোটিন
    প্রাণিজ প্রোটিন নিয়মিত খেলে পুষ্টির ঘাটতি মেটে। অ্যামাইনো অ্যাসিড পুষ্ট করে শরীরের কোষ। তাই মাছ, চিকেন, চিজ, ডিম, দুধ ঘুরিয়ে ফিরিয়ে খাওয়ান বাচ্চাকে। নিরামিশ খেতে পছন্দ করলে রেঁধে দিন রাজমা, সয়াবিন, ছাতুর নানা পদ।

    ৪. বাদাম
    আখরোট আর আমন্ড ওমেগা ৩ ফ্যাটি অ্যাসিডে পরিপূর্ণ। ফুসফুসের সংক্রমণ থেকে বাঁচায় এর মধ্যে থাকা গুড ফ্যাট। তাই টিফিনে বাচ্চাকে দিতে পারেন বাদাম।

    ৫. মশলা
    রসুন, আদা, হলুদে প্রচুর প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট আছে। যা শরীরকে জীবাণুমুক্ত করে সহজেই। সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচায়। বাড়ায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    ভিপি নুরের বিলাসী জীবন!

    ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯

    আর্কাইভ

    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০৩১
  • ফেসবুকে আমরা

  • You cannot copy content of this page