• শিরোনাম

    মৎস্যজীবিদের বাঁচাতে ভারতীয় বিজ্ঞানীদের নতুন আবিস্কার

    মানচিত্র ডেস্ক | ০৭ নভেম্বর ২০১৯ | ১:২৫ অপরাহ্ণ

    মৎস্যজীবিদের বাঁচাতে ভারতীয় বিজ্ঞানীদের নতুন আবিস্কার

    প্রথীকি ছবি

    গত এক বছরে হয়ে যাওয়া পাঁচটি ঘূর্ণিঝড়ের প্রকোপে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন ভারতসহ নানা প্রান্তের মৎস্যজীবীরা। বারবার প্রকৃতি অশান্ত হওয়ার ফলে রুটি-রুজিই বন্ধ হতে বসেছে অনেকের। কারণ, ঘূর্ণিঝড়ের আভাস পাওয়ামাত্রই সমুদ্রে যাওয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

    তবে মৎস্যজীবীদের এই ধরনের বিপদ থেকে রক্ষা করার জন্য এবার থেকে একটি স্যাটেলাইট নেভিগেশন সিস্টেমের সাহায্য নিতে চলেছেন ইন্ডিয়ান সুনামি আর্লি ওয়ার্নিং সেন্টারের বিজ্ঞানীরা। আবিষ্কার করেছেন জেমিনি নামে মুশকিল আসানকারী একটি যন্ত্র।

    ভারতীয় একটি গণমাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, এতদিন সমুদ্র উপকূল থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে গেলেই মোবাইলে টাওয়ার পেতেন না মৎস্যজীবীরা। ফলে আবহাওয়ার পরিবর্তন হলে বা সতর্কতা জারির কথা জানতে পারতেন না। কিন্তু এবার থেকে সেই সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন তারা।

    আর এর থেকে তাদের মুক্তি দেবেন মাত্র ৯ হাজার রুপি মূল্যের একটি ছোট্ট যন্ত্র জেমিনি। এতদিন বিমান বন্দরগুলিতে প্লেন ওঠানামার কাজে ব্যবহার করা হত তাকে। একটু এদিক-ওদিক করে এবার থেকে লক্ষ লক্ষ মৎস্যজীবীর প্রাণ বাঁচানোর কাজে ব্যবহার হবে যন্ত্রটিকে।

    জেমিনি নামে এই যন্ত্রটি মাস দুয়েক আগে তৈরি করেছেন সংস্থার বিজ্ঞানীরা। মোবাইল ফোনের ব্লু টুথের মাধ্যমে এটি সরাসরি কৃত্রিম উপগ্রহের সঙ্গে যুক্ত হয়ে কাজ করবে। এর ফলে ফোনের সিগন্যাল না থাকলেও কোন সমস্যা হবে না।

    এ প্রসঙ্গে ভারতীয় প্রযুক্তি ও বিজ্ঞান মন্ত্রলালয়ের মন্ত্রী হর্ষবর্ধন ভারতীয় ওই গণমাধ্যমকে জানান, এর ফলে আগামীতে প্রচুর মানুষকে বাঁচানো যাবে। অনেক আগেই সুনামি সম্পর্কে সতর্ক করবে এই যন্ত্র। তবে আরও আগে একে হাতে পেলে ভাল হত।

    ২০১৭ সালের নভেম্বর মাসে ওচি ঘূর্ণিঝড়ের ফলে ভারতের পশ্চিম উপকূলে ২১৮ জনের মৃত্যু হয়। মৃতদের মধ্যে বেশিরভাগই সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন। তখন এই যন্ত্রটি হাতে পেলে ওই মানুষগুলিকে রক্ষা করা যেত।

    Comments

    comments

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    পৃথিবীর যে দেশে কোন সাপ নেই?

    ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯

    আর্কাইভ

    সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
     
    ১০
    ১১১২১৩১৪১৫১৬১৭
    ১৮১৯২০২১২২২৩২৪
    ২৫২৬২৭২৮২৯৩০  
  • ফেসবুকে আমরা