আজ মঙ্গলবার | ২০ নভেম্বর২০১৮ | ৬ অগ্রহায়ণ১৪২৫
মেনু

ইন্দোনেশিয়ায় ১৮৮ জন যাত্রী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত

মানচিত্র ডেস্ক | ২৯ অক্টো ২০১৮ | ২:১২ অপরাহ্ণ

ছবি: সংগৃহীত-দুর্ঘটনাস্থলে উদ্ধার কার্যক্রমের দৃশ্য।

ইন্দোনেশিয়ায় নিখোঁজ হওয়া বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে কর্তৃপক্ষ। বিমানটিতে ১৮৮ জন যাত্রী ও ক্রু ছিলেন। লায়ন এয়ার বোয়িং সেভেন হান্ড্রেড থার্টি সেভেন ফ্লাইটটি জাকার্তা থেকে সকাল ছয়টা বিশ মিনিটে উড্ডয়নের তের মিনিট পর নিখোঁজ হয়। বিধ্বস্তের খবর নিশ্চিত করলেও এ ঘটনায় কেউ বেঁচে আছেন কি না সে বিষয়ে এখনো জানা যায়নি।

সংবাদ সম্মেলনে এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, বিমানটিতে ১৭৮ জন পূর্ণবয়স্ক, তিনজন শিশু, দুইজন পাইলট এবং পাঁচজন ক্রু ছিলেন। তবে সিএনএনে বলা হয়েছে বিমানে ছয়জন ক্রুসহ মোট ১৮৯ জন ছিলেন। দেশটির জাতীয় অনুসন্ধান ও উদ্ধার সংস্থার মুখপাত্র ইউসুফ লতিফ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, ‘বিমানটি বিধ্বস্ত হয়েছে এটি নিশ্চিত।’

উড্ডয়নের পর জাকার্তা উপকূল থেকে ৩৪ নটিক্যাল মাইল দূরে জাভা সাগরে বিমানটি বিধ্বস্ত হয়। এরই মধ্যে জাকার্তা, বান্দুং এবং লামপুংয়ের সহস্রাধিক নৌকা, হেলিকপ্টার এবং ১৩০ উদ্ধারকারী উদ্ধার কাজে যোগ দিয়েছেন। বিধ্বস্তের পর বিমানটি পানির নিচে ডুবে গিয়েছে। বিধ্বস্ত হওয়া এলাকার আশপাশ থেকে বিমানের ধ্বংসাবশেষ ও যাত্রীদের বিভিন্ন ব্যক্তিগত সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ার দুর্যোগ সংস্থার প্রধান সুতোপো পুরো নুগ্রোও বিধ্বস্ত বিমানের ধ্বংসাবশেষ এবং ব্যক্তিগত জিনিসপত্রের ছবি টুইট করেছেন। এছাড়া তিনি পূর্ব জাকার্তার টুগবোট অব কারাওয়াঙ এর একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। যেখানে পানিতে বিধ্বস্ত বিমানের ধ্বংসাবশেষ ভেসে বেড়াতে দেখা যাচ্ছে। লায়ন এয়ারের প্রধান নির্বাহী এডওয়ার্ড সিরাইত ঘটনার পর রয়টার্সকে জানান, ‘আমরা এই মুহূর্তে কোনো মন্তব্য করতে পারছি না। তথ্য সংগ্রহের কাজ করছি।’

জেটি সিক্স হান্ড্রেড টেন ফ্লাইটটি ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী থেকে সকাল ছয়টা দশ মিনিটে উড্ডয়নের কথা থাকলেও দশ মিনিট পর দেশটির বাঙকা বেলিটাঙ দ্বীপের শহর পাঙকাল পিনাঙয়ের উদ্দেশ্যে উড্ডয়ন করে। এটি উড্ডয়নের এক ঘন্টা পর পাঙকালে অবতরণের কথা ছিল। উড্ডয়নের ১৩ মিনিট পর নিখোঁজ হয় বিমানটি।

বোয়িং সেভেন হান্ড্রেড সেভেন সিরিজের ম্যাক্স এইট মডেলের বিমানটি ২০১৮ সালে লায়ন এয়ারে যুক্ত হয় বলে জানিয়েছে বিমান সংস্থা। কেনার পর মোট আট শ ঘন্টার মত উড়েছিল বিমানটি। দেশটিতে সর্বশেষ বিমান দুর্ঘটনা ঘটেছিলো ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে। এয়ার এশিয়ার ইন্দোনেশিয়ার এথ্রি হান্ড্রেড টুয়েন্টি এয়ারবাসটি ১৬২ জনকে নিয়ে পানির মধ্যে বিধ্বস্ত হয়।

Comments

comments

x