আজ মঙ্গলবার | ১৯ জুন২০১৮ | ৫ আষাঢ়১৪২৫
মেনু

স্বরণীয় বিজয়ে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশের মেয়েরা

মানচিত্র ক্রীড়া ডেস্ক | ১০ জুন ২০১৮ | ২:২০ অপরাহ্ণ

গৌরবময় অনিশ্চয়তার খেলা ক্রিকেটে এশিয়ার সেরা এখন লাল-সবুজের বাংলাদেশ!! ক্রিকেটের পরাশক্তি ভারতকে একই টুর্নামেন্টে পরপর দু’বার পরাভূত করা এক দুঃসাহসিক কাজ। সে কাজটিই এবার করে দেখিয়ে দিল সালমা বাহিনী। তাদের এ স্বরণীয় বিজয়ে বাংলাদেশ দলের প্রতিটি সদস্যকে অভিনন্দন জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাদের এ জয়ে দেশবাসি এখন আনন্দের জোয়ারে ভাসছে। এ জয়টি ঈদ বোনাস হিসেবে টাইগার সমর্থকদের উপহার দিল সালমা-রুমানারা। সাবাশ বাংলাদেশ।

এদিকে, এশিয়া কাপ টি-টোয়েন্টিতে ভারতকে ৩ উইকেটে হারানোর দৃশ্য রোববার (১০জুন) মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামের ড্রেসিংরুমে টিভির পর্দায় উপভোগ করছিলেন মাশরাফি, তামিম-সৌম্যরা। সালমাদের এ বড় সফলতায় আনন্দ-উল্লাস জাতীয় দলের খেলোয়াড়রাও। ক্রিকেট ইতিহাসে কোনো টুর্নামেন্টের ট্রফি জয় এটিই বাংলাদেশের প্রথম। জয়ের জন্য শেষ বলে বাংলাদেশের প্রয়োজন ছিল ২ রানের। খেলায় তখন টান টান উত্তেজনা। জাহানারা আলম দুই রান পূর্ণ করার সাথে সাথে গর্জে ওঠেন বাংলাদেশ।

এর আগে, এশিয়া কাপে ছয়বারের অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন শক্তিশালী ভারত। তাদের এবার ২২ গজের মধ্যে বেধে রেখে শিরোপা জেতে কুবরা-শামীমারা। এটা বাংলাদেশের নারী ক্রিকেটারদের জন্য এক ঐতিহাসিক ঘটনা। গ্রুপপর্বে একে একে পাকিস্তান, ভারত, থাইল্যান্ড ও মালয়েশিয়াকে হারিয়ে টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠে বাংলাদেশ। রোববার মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরের কিনরারা একাডেমি ওভাল শুরুতে টস হেরে ভারত ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ১১২ রান সংগ্রহ করে। জবাবে শেষ বলে ২ রান নিয়ে শিরোপা জিতে নেয় বাংলাদেশ।

১৫ ওভার শেষে বাংলাদেশ ১১৩ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ১৫ ওভার শেষে ৮২ রান সংগ্রহ করেছে বাংলাদেশ। জয়ের জন্য ৩০ বলে বাংলাদেশের প্রয়োজন ৩১ রান। ১১ ওভার শেষে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৫৪ রান। ৯ ওভারে জেতার জন্য বাংলাদেশকে করতে হবে ৫৯ রান। বিনা উইকেটে ৩৫ রান তোলার পর বাংলাদেশ শিবিরে জোড়া আঘাত করেন পুনম যাদব। তার করা সপ্তম ওভারের পঞ্চম বলে আয়শা রহমান (১৭) ও ষষ্ঠ বলে শামীমা সুলতানা ফিরে যান (১৬)। ১১২ রানে থামল ভারত।

ইনিংসের শুরুতে নিদারুণ ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ার পরও অধিনায়ক হারমানপ্রিত কাউরের অনবদ্য ৫৬ রানের ইনিংসে ভর করে ১১২ রান সংগ্রহ করেছে ভারত। প্রথমবারের মতো এশিয়া কাপের ফাইনালে উঠেই শিরোপা জিততে ১১৩ রান করতে হবে বাংলাদেশকে।

দলীয় ৭৪ রানের মাথায় সপ্তম উইকেট হারিয়ে নিদারুণ ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েছে ভারত। ১৫তম ওভারের শেষ বলে শিখা পান্ডেকে শামীমা সুলতানার হাতে ক্যাচ বানিয়ে সাজঘরে ফেরান রুমানা আহমেদ। এই ওভারে রুমানা দুটি উইকেট নেন। দলীয় ৭২ রানের মাথায় ষষ্ঠ উইকেট হারায় ভারত। এ সময় রুমানা আহমেদের বলে এগিয়ে এসে মারতে গিয়ে মিস করেন ববিতা।

বল চলে যায় বাংলাদেশের উইকেটরক্ষক শামীমা সুলতানার কাছে। তিনি স্ট্যাম্প ভেঙে দেন। দলীয় ৬২ রানের মাথায় পঞ্চম উইকেট হারায় ভারত। এ সময় ভারতের কৃষ্ণমূর্তি বোল্ড হয়ে যান সালমা খাতুনের বলে।

টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ১০ রানে প্রথম, ২৬ রানে দ্বিতীয়, ২৮ রানের তৃতীয় ও ৩২ রানে চতুর্থ উইকেট হারিয়ে চাপে পড়েছে ভারত। এই ম্যাচের আগে ৯টি টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছে ভারত-বাংলাদেশ। তার মধ্যে ভারত জিতেছে ৮টিতে। আর বাংলাদেশ ১টিতে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
ভারত: ২০ ওভারে ১১২/৯ (মিতালি ১১, স্মৃতি ৭, দিপ্তি ৪, হারমানপ্রিত ৫৬, অনুজা ৩, ভেদা ১১, তানিয়া ১, শিখা ১, ঝুলন ১০, একতা ১*; নাহিদা ০/১২, সালমা ১/২৪, খাদিজা ২/২৩, জাহানারা ১/২৩, রুমানা ২/২২, ফাহিমা ০/৮)
বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ১১৩/৭ (শামিমা ১৬, আয়েশা ১৭, ফারজানা ১১, নিগার ২৭, রুমানা ২৩, ফাহিমা ৯, সানজিদা ৫ জাহানারা ২*, সালমা ০*; একতা ০/১৩, শিখা ০/১০, দিপ্তি ০/১৯, অনুজা ০/২৩, পুনম ৪/৯, ঝুলন ০/২০, হারমানপ্রিত ২/১৯)।

ফল: বাংলাদেশ ৩ উইকেটে জয়ী
প্লেয়ার অব দা ম্যাচ: রুমানা আহমেদ
প্লেয়ার অব দা সিরিজ: হারমানপ্রিত কাউর

Comments

comments

x