আজ রবিবার | ২২ জুলাই২০১৮ | ৭ শ্রাবণ১৪২৫
মেনু

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট সহকর্মীকে রেখে পালালো বিদ্যুৎ বিভাগের কর্মচারীরা

মানচিত্র ডেস্ক | ০৬ এপ্রি ২০১৮ | ১:০৩ অপরাহ্ণ

ছবি- সংগৃহীত

কক্সবাজারে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট কর্মচারীকে তারে ঝুলন্ত রেখে পালিয়ে গেলেন তার সহকর্মীরা। পরে বৈদ্যুতিক তারে ছটফট করতে থাকা আবদুল করিম নামের ওই কর্মচারীকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা বিদ্যুৎ বিভাগের একটি গাড়িতেও আগুন ধরিয়ে দেয়। সেইসঙ্গে বিদ্যুৎ বিভাগের ওই গাড়ির চালক রতন বড়ুয়াকে মারধর করে উত্তেজিত জনতা। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

বিদ্যুৎস্পৃষ্ট আবদুল করিমকে গুরুতর আহতাবস্থায় প্রথমে কক্সবাজার সদর হাসপাতাল ভর্তি করা হয়। পরে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। বিদ্যুৎস্পৃষ্ট আবদুল করিম শহরের পশ্চিম লারপাড়া এলাকার মো. জয়নাল আবেদীনের ছেলে এবং বিদ্যুৎ বিভাগের অস্থায়ী কর্মচারী বলে জানা গেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সকাল সাড়ে ১০টার দিকে আবদুল করিমসহ বিদ্যুৎ বিভাগের আরও কয়েকজন কর্মচারী বাস টার্মিনাল এলাকায় একটি খুঁটিতে কাজ শুরু করেন। আবদুল করিম মই দিয়ে খুঁটির তারের কাজ করতে উঠেন। এ সময় হঠাৎ তারে বিদ্যুৎ সংযোগ চলে আসলে করিম বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তারের সাথে ঝুলে ছটফট করতে থাকেন। এ সময় নিচে থাকা সহকর্মীরা তার অবস্থা দেখে পালিয়ে যান।

পরে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠায়। এ সময় বিক্ষুব্ধ জনতা বিদ্যুৎ বিভাগের একটি গাড়ি পুড়িয়ে দেয় এবং গাড়ির চালক রতন বড়ুয়াকে মারধর করে। এ ঘটনায় প্রায় ১ ঘণ্টা সংশ্লিষ্ট সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকে। খবর পেয়ে কক্সবাজার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে গাড়ির আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আর পুলিশ এসে যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক করে।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক নোবেল কান্তি দে সাংবাদিকদের জানান, বিদ্যুৎস্পৃষ্ট কর্মচারীর শরীরের ৩০ শতাংশ পুড়ে গেছে। বিশেষ করে, তার শরীরের নিচের অংশ বেশি দগ্ধ হয়েছে। অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

কক্সবাজার বিদ্যুৎ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মুস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, বিষয়টি তদন্তে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। যদি বিদ্যুৎ বিভাগের অন্য কর্মচারীদের দায়িত্বে অবহেলা থাকে, তাহলে তাদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Comments

comments

x