আজ মঙ্গলবার | ২২ মে২০১৮ | ৮ জ্যৈষ্ঠ১৪২৫
মেনু

ফোর্বসের উদ্যোক্তা তালিকায় দুই বাংলাদেশি তরুণ

মানচিত্র ডেস্ক | ২৭ মার্চ ২০১৮ | ১:০৪ অপরাহ্ণ

ছবি- সংগৃহীত

চলতি বছরে এশিয়ার সেরা ৩০ উদ্যোক্তার তালিকা প্রকাশ করেছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রভাবশালী ম্যাগাজিন ফোর্বস। আর এবারের তালিকায় উঠে এসেছে বাংলাদেশের দুই তরুণ উদ্যোক্তার নাম।

‘৩০ আন্ডার ৩০ এশিয়া ২০১৮: দ্য সোশ্যাল এনট্রপ্রেনারস ব্রিঙ্গিং পজিটিভ চেঞ্জ টু এশিয়া’ শিরোনামে সোমবার (২৬ মার্চ) এশিয়ার সেরা ৩০ উদ্যোক্তার তালিকা প্রকাশ করেছে ফোর্বস।

ফোর্বসের এই তালিকায় উঠে আসা বাংলাদেশি দুই তরুণ উদ্যোক্তা হলেন, অনলাইন শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান টেন মিনিটস স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা আয়মান সাদিক (২৬) এবং পরিবেশ রক্ষায় নবায়ণযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের উদ্দেশে প্রতিষ্ঠিত ‘চেঞ্জ’ নামের স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠানের প্রধান সাজিদ ইকবাল (২৭)।

পরিবেশ রক্ষায় নবায়ণযোগ্য জ্বালানি ব্যবহারের লক্ষ্যে ২০১২ সালে চেঞ্জ প্রতিষ্ঠা করেন সাজিদ ইকবাল। প্লাস্টিকের বোতল ব্যবহার করে পরিবেশসম্মত বিকল্প জ্বালানির ব্যবস্থা করতে ওই সময় একটি প্রকল্প চালু করেন তিনি।

‘বোতলবাতি’ নামে তার এই প্রকল্প স্বল্প সময়ের মধ্যেই ব্যাপক সাড়া ফেলে।

দিনের বেলায় বস্তির অন্ধকার ঘরে সূর্যের আলো ব্যবহার করে তৈরি হয় এই বোতলবাতি। শুধু ঘরেই নয়, বড় বড় শিল্পপ্রতিষ্ঠানে পরিবেশবান্ধব বাতি পৌঁছে দিতে সোলার পাইপ লাইট নামের একটি প্রকল্প নিয়েও কাজ করে তার প্রতিষ্ঠান।

ফোর্বস বলছে, জার্মানির একটি সংস্থার সহায়তায় বাংলাদেশের পিছিয়ে পড়া অন্তত ৪ হাজার মানুষের ঘরে বোতলবাতির আলো পৌঁছে দিয়েছেন সাজিদ। তার এই প্রতিষ্ঠান সৌর লণ্ঠন, সড়ক বাতি, ক্ষুদে সেচ পাম্প প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কাজ করছে।

এর আগে বাংলাদেশের এই তরুণ উদ্যোক্তা প্রফেসর মোহাম্মদ ইউনূস পদক, মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তর, ব্রিটিশ রাণীর কাছ থেকে কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ডস-২০১৭ লাভ করেন।

অন্যদিকে, শিক্ষামূলক সংগঠন হিসেবে ২০১৫ সালে ‘টেন মিনিট স্কুল’-এর প্রতিষ্ঠা করেন শিক্ষা উদ্যোক্তা আয়মান সাদিক। একটি মোবাইল অপারেটর কোম্পানির সহায়তায় তিনি এই অনলাইন স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন।

যার উদ্দেশ্য ছিল অনলাইনে এমন একটি প্ল্যাটফর্ম তৈরি করা; যেখান থেকে মানুষ শিক্ষা অর্জন করতে পারবে।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইউটিউব এবং ফেসবুকে সংক্ষিপ্ত লেকচারসমৃদ্ধ ভিডিও প্রকাশ করে টেন মিনিটস স্কুল। বাংলায় ভিডিওচিত্র নির্মাণের পাশাপাশি অনলাইনে লাইভ ক্লাসও নিয়ে থাকে সাদিকের এই অনলাইন স্কুল।

ফোর্বস বলছে, আয়মান সাদিকের অনলাইন এ স্কুল শিক্ষার্থীদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য শত শত লাইভ ক্লাস, স্মার্ট বই, হাজার হাজার ভিডিও টিউটোরিয়াল তৈরি করে।

বর্তমানে দেড় লাখের বেশি শিক্ষার্থীর দোরগোড়ায় পৌঁছেছে সাদিকের এই স্কুল। সম্প্রতি টেন মিনিটস স্কুলের সহায়তায় এগিয়ে এসেছে বাংলাদেশ সরকার।

‘ব্রিটিশ রাণীর কুইন্স ইয়াং লিডারস অ্যাওয়ার্ডস-২০১৮’ পেয়েছেন আয়মান সাদিক। এছাড়া এই স্কুলের জন্য এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় আইসিটি জোটের বেস্ট ই-লার্নিং অ্যাওয়ার্ডও লাভ করেন তিনি।

Comments

comments

এই বিভাগের আরও খবর
x