আজ সোমবার | ১৮ জুন২০১৮ | ৪ আষাঢ়১৪২৫
মেনু

লোকে আমায় ‘চোখ মারার সেনসেশন’ বলে ডাকতো

মানচিত্র ডেস্ক | ১১ মার্চ ২০১৮ | ১০:৫৭ পূর্বাহ্ণ

ফাইল ছবি

ঠোঁটে চাপা হাসি নিয়ে ভ্রু নাচিয়ে কিশোরীর চোখ মারার ভিডিও ক্লিপটি সোশাল মিডিয়ায় এমনভাবে ভাইরাল হয় যে, ভারতে তিনি রাতারাতি ‘জাতীয় ক্রাশ’ হিসেবে খেতাব পেয়ে যান।

প্রথম অভিনীত দক্ষিণ ভারতীয় ওই সিনেমার ভিডিও গানটির দৃশ্যে তিনি যখন তারই সহপাঠী এক কিশোরকে চোখ মারেন, তখন যেন হ্যাঁচকা টান লাগে এই উপমহাদেশের কোটি কোটি তরুণ দর্শকের হৃদয়েও।

নিজের আলোচিত ভিডিও নিয়ে ব্রিটিশ গণমাধ্যম বিবিসির কাছে আশ্চর্য মন্তব্য করেছেন কেরালার সেই কলেজ ছাত্রী প্রিয়া প্রকাশ ওয়ারিয়ার।

নিজের অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে প্রিয়া বলেন, এটা আসলে রাতারাতিই হয়েছে। আমি তো এরকম কিছু আশাই করি নি। আমরা ভেবেছিলাম, ভিডিওটা হয়তো শুধু কেরালাতে আলোচনার জন্ম দিতে পারে। কিন্তু আমরা কখনোই ভাবিনি যে, এটা এমন আন্তর্জাতিক পর্যায়েও চলে যেতে পারে।

প্রিয়া বলেন, লোকজন এই চোখ মারা নিয়েই বেশি কথা বলেছে। তারা আমাকে ‘চোখ মারার রানী’, ‘চোখ মারার সেনসেশন’ ইত্যাদি বলেও ডাকছিলো।

আমি মনে করি, মানুষ যেটা বলতে চায় আজকালকার দিনে সেটা সে সোশাল মিডিয়ার মাধ্যমে জানিয়ে দেয়। মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বলে, বলে টেক্সট মেসেজের মাধ্যমে।

প্রিয়া বলেন, মানুষ এখন নিজেদের আবেগ অনুভূতির কথা প্রকাশ করতে গিয়ে প্রচুর স্মাইলি ব্যবহার করে। এখন তারা সামনাসামনি এসব বিষয়ে কথা বলে না। কিন্তু আমি যখন ওই ভিডিওতে ব্যক্তিগতভাবে এরকম করে চোখ মারি, তখন লোকেরা এটাকে পছন্দ করে ফেললো।

তিনি বলেন, আসলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যদি না থাকতো, তাহলে আমার এই ভিডিওটা এরকম ভাইরাল হতো না। লোকজন এই ভিডিওটির কথা হয়তো জানতেও পারতো না।

কিশোর প্রেমের কাহিনীর ওপর ভিত্তি করে মালায়লাম ভাষায় নির্মিত এই সিনেমাটির নাম ‘ওরু আদার লাভ’। সিনেমায় প্রিয়া প্রকাশ ওয়ারিয়ার একজন ছাত্রীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ছবিটি এ বছরের শেষের দিকে মুক্তি পাওয়ার কথা রয়েছে।

Comments

comments

x