আজ রবিবার | ১৬ ডিসেম্বর২০১৮ | ২ পৌষ১৪২৫
মেনু

বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন অব জর্জিয়ার পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি | ২১ জানু ২০১৮ | ২:০৪ অপরাহ্ণ

বংশপরম্পরায় বাঙালীরা পৃথিবীর যে কোন জাতির চেয়ে উৎসব প্রিয়। হই-হুল্লোড়ে মেতে থাকতেই সবাই পছন্দ করেন। উৎসব মানেই বাঙালী। আমুদে বাঙালীর বেশ কিছু উৎসবের মধ্যে একটি পিঠা উৎসব। প্রতিটি ঘরে ঘরে শীতকালে পীঠা তৈরির ধুম পড়ে যায়।

আত্মীয়-স্বজনদের নিয়ে উৎসবরে মধ্যে দিয়ে পিঠা উৎসবে মেতে থাকে বাঙালীরা। তবে বসে থাকেন না প্রবাসী বাঙালীরাও। বিদেশের মাটিতে বসে গ্রাম বাংলার আদলে জাঁকজমক পূর্ণ পরিবেশের মধ্যে দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের আটলান্টায় অনুষ্ঠিত হয়ে গেল এযাবতকালের সর্ববৃহৎ পিঠা উৎসবের।

স্থানীয় সময় বিকেল ৪টা থেকে শুরু হওয়া পিঠা উৎসবের অনুষ্ঠান চলে গভীর রাত পর্যন্ত।

Image may contain: one or more people, people on stage and indoor

আর এই পিঠা উৎসবের আয়োজনে ছিল বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন অব জর্জিয়া। সংগঠনের সভাপতি ডা. মুহাম্মদ আলী মানিক ও সাধারণ সম্পাদক অসীম সাহার অক্লান্ত পরিশ্রমে সংগঠনটির এবারের পিঠা উৎসব আটলান্টার সব উৎসবকে ম্লান করে শ্রেষ্ঠতর হয়েছে। দর্শক উপস্থিতি প্রমাণ করেছে তারা কতটা পরিশ্রম করে এই পিঠা উৎসবকে স্বার্থক করেছেন।

Image may contain: 4 people, people smiling, people standing

গত ১৪ জানুয়ারী রোববার বার্কমার হাই স্কুল মিলনায়তন কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে ওঠে। বিভিন্ন পিঠার সমাহার ঘটে সেখানে। বাঙালী গৃহবধূরা বৈচিত্রময় পিঠা তৈরি করে সবার মন জয় করেছেন।

Image may contain: 2 people, people on stage and indoor

বিভিন্ন স্টলে পিঠাগুলির মধ্যে ছিল তেল পিঠা, দুধ চিতই, পাটি সাপটা, দুধ খেজুর, সূর্যমুখী, ডালপাতা, ছাঁচের পিঠা, ডিমের পিঠা, মাছ পিঠা, পুলি পিঠা, পাকন পিঠাসহ হরেক রকমের পিঠা। সঙ্গে আমেরিকার জনপ্রিয় ব্যান্ড দল মাদলের পরিবেশনায় মনোমুগ্ধকর বেশ কিছু গান।

Image may contain: 5 people, people sitting, crowd and indoor

তাদের সুরের মূর্চ্ছনায় বাঙালীরা আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে পড়ে। এছাড়া মেলা প্রাঙ্গনে বসা স্টলগুলোতে বাংলাদেশের তৈরি বিভিন্ন শাড়ি, সালোয়ার কামিজ, পাঞ্জাবী, চুড়ি, গয়নার সমাহার।

Image may contain: 8 people, people smiling, people standing

সুভশ্রী নন্দী রাইয়ের উপস্থাপনায় শুরুতেই শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ফাউন্ডেশন অব জর্জিয়ার সভাপতি ডা. মুহাম্মদ আলী মানিক। এরপরেই স্থানীয় শিল্পীদের নাচ-গান ও কবিতা আবৃত্তির পর মঞ্চে আসে জনপ্রিয় ব্যান্ড ‘মাদল’।  পরে পুরো অনুষ্ঠানটির সঞ্চালনায় ছিলেন দেবযানী সাহা।

শেষে সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক অসীম সাহা সবাইকে পিঠা উৎসবের সফল সমাপ্তির জন্য উপস্থিত সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

Image may contain: 8 people, people smiling, people standing

অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন সাকিরা আলী বাচ্চি, খন্দকার আবদুল হক, শফিকুল হামিদ কামাল, অভিষেক শ্যাম, অজয় রায়, মো. কামরুজ্জামান প্রমুখ।

শেষ পর্বে রাফেল ড্র’তে প্রথম পুরষ্কার টিভি, দ্বিতীয় পুরষ্কার ব্লু টুথ ও তৃতীয় পুরষ্কার প্রেশার কুকার জিতে নেন লটারিতে অংশ নেয়া লটারী বিজয়ীরা। স্পনসর করেন এএইউএস মর্টগেজের মাহবুবুর রহমান ভূঁইয়া, ব্যবসায়ী আদনান সুমন ও হুমায়ুন কবির কাওসার এবং বাঙালিদের জনপ্রিয় মনসুন মাসালা রেস্টুরেন্ট। রাফেল ড্র’র পরিচালনা করেন এনামুল হক।

অনুষ্ঠানে বিশেষ সহযোগিতা প্রদানের জন্যে আয়োজকদের পক্ষ থেকে হাসান চৌধুরী সুহেল, সুহরাব আহমেদ, আহমেদ সুহেল ও সজিব বিন সুফীকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করা হয়।

Comments

comments

x