আজ বৃহস্পতিবার | ১৮ জানুয়ারি২০১৮ | ৫ মাঘ১৪২৪
মেনু

জুতোয় আঁকা মেসির বর্ণময় জীবন!

মানচিত্র ক্রীড়া ডেস্ক | ১১ জানু ২০১৮ | ২:৩৬ অপরাহ্ণ

সব বাধা যিনি বাম পায়ে গুঁড়িয়ে দেন, ফুটবল মাঠে যার পা জোড়া শিল্পীর তুলি হয়ে এঁকে যায় সৃষ্টিশীল আর দৃষ্টিনন্দন এক চিত্রকল্প।

সবুজ ঘাসে ঢাকা একশ বিশ বাই আশি গজের মঞ্চে যিনি একটার পর একটা অদ্ভুত সুন্দর জাদু দেখিয়ে চলেন প্রতিনিয়ত!

তার বাম পাটা তো লিওনার্দো ভিঞ্চির মতো নিখুঁত কোনো চিত্রপট ফুটিয়ে তোলে ফুটবল মাঠে! সাধে তো আর তাকে ম্যাজিশিয়ান ডাকা হয় না!

অনেক ফুটবলারই ভালো খেলে মানুষের মন জয় করে রেখেছেন যুগ যুগ ধরে। অনেকেই আবার নিজেদের কাজের দ্বারা ফুটবল কে করেছে কলঙ্কিত। তবে খুব কম খেলোয়াড় আছেন যারা সুন্দর খেলা ও মার্জিত ব্যবহার দিয়ে মানুষের মন জয় করে রেখেছেন। এই খুব কমের মধ্যে সেরা হলেন লিওনেল আন্দ্রেস মেসি।

আর্জেন্টিনা থেকে বার্সেলোনা।‌ স্বপ্নে ঘেরা ও বর্ণময় অমসৃণ পথ। সেই পথেরই জীবনবৃত্ত ফুটিয়ে তোলা হলো ক্যানভাসে!‌

ক্যারিয়ারে কতজনের কাছ থেকে কত কিছুই না উপহার পেয়েছেন তিনি। তবে এবার যা পেলেন তা সত্যি সত্যিই অবিশ্বাস্য! প্যারাগুয়ের চিত্রশিল্পী লিন ক্যান্তেরো এ নারী ফুটিয়ে তুলেছেন আর্জেন্টাইন যুবরাজের জীবনের গল্প।

প্রশ্ন থাকতে পারে কীভাবে ফুটিয়ে তোলা হল বার্সেলোনা বরপুত্রের কাহিনী?‌ উত্তর- জুতোয়। মেসি তার জীবনের আদর্শ। ক্যান্তেরো তাই মেসির জীবনের নানা ধাপ হাতে একে ফুটিয়ে তুলেছেন মেসির জুতোতেই!‌

ফুটবল বিস্ময়ের জীবন-ইতিহাসে দারুণ অনুপ্রাণিত তিনি। তাই তো হাতেই তৈরি করে ফেলেছেন একজোড়া বুট। যাতে বিস্ময়করভাবে ফুটিয়ে তুলেছেন ৩০ বছর বয়সী ফুটবলারের জীবনের সুন্দর মুহূর্তগুলো।

কী নেই এ বুটে? স্ত্রী আন্তোনেল্লা রোকুজ্জোকে চুম্বন, সন্তানদের আদর, বার্নাব্যুতে রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে গোলের পর জার্সি তুলে ধরা- সব দৃশ্যই অঙ্কিত হয়েছে এতে। তুলে ধরা হয়েছে- কীভাবে দারিদ্র্যপীড়িত রোজারিও থেকে বার্সেলোনায় পাড়ি জমান খুদে জাদুকর। সেখানে কতটা যুদ্ধ করে প্রতিনিয়ত নিজেকে ঘষেমেজে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়।

মেসির প্রাণবন্ত ক্যারিয়ারে অবদান রয়েছে অনেকেরই। বাদ যায়নি তাদের নামও। আঁকা হয়েছে রোনালদিনহোর ছবি। বার্সায় সিনিয়র ক্যারিয়ারের শুরুতে যিনি ওয়ান্ডারম্যানকে ছায়ার মতো আগলে রেখেছিলেন। ঈর্ষা জাগানিয়া ক্যারিয়ার গঠনে তার পরিবার ও বন্ধুদেরও ভূমিকা অঙ্কিত হয়েছে।

ফুটবলবোদ্ধারা বলছেন, বিশেষ বুটগুলোতে সত্যিকার অর্থেই চিত্রিত হয়েছে মেসির উজ্জ্বল ক্যারিয়ার।

লিলির ভাষ্য, ‘বুট জোড়া বার্সেলোনায় প্রিয় খেলোয়াড়ের কাছে পাঠানো হয়েছে। এটি সম্পূর্ণ হাতে তৈরি। ফুটবলের বরপুত্রের জীবন থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে এ বুট জোড়া তৈরি করা হয়েছে। এতে ছবি ব্যবহার করে তার ক্যারিয়ারের বিভিন্ন দিক বর্ণনা করা হয়েছে। দেখানো হয়েছে শীর্ষে উঠতে কতটা কঠোর পরিশ্রম করেছেন তিনি।’

বুট জোড়াকে মেসির প্রতি প্যারাগুইয়ানদের ভালোবাসার প্রতীক বলে আখ্যায়িত করেছেন লিলি।মেসি নিজে এমন উপহার পেয়ে খুব খুশি। স্পেশাল জুতো হাতে নিয়ে ছবিও তুলেছেন। পোস্ট করেছেন সামাজিক মাধ্যমে।

Comments

comments

x