আজ বুধবার | ২২ নভেম্বর২০১৭ | ৮ অগ্রহায়ণ১৪২৪
মেনু

রোবটকে নাগরিকত্ব দিলো সৌদি আরব

মানচিত্র ডেস্ক | ৩০ অক্টো ২০১৭ | ১:৪৯ অপরাহ্ণ

রোবট

বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে সৌদি আরব একটি রোবটকে নাগরিকত্ব দিয়েছে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই নিয়ে ব্যাপক বিতর্ক চলছে, কেননা, সৌদি আরবের সাধারণ নারীদের চেয়ে এই নারী রোবটের অধিকার বেশি হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। মন্যুষ্যরূপী এক রোবটকে নাগরিকত্ব প্রদান করেছে সৌদি আরব। গত সপ্তাহে এক ইনোভেশন কনফারেন্সে এই ঘোষণা দেয় রিয়াদ। বিশ্বের প্রথম কোনো দেশ হিসেবে সৌদি আরব একটি রোবটকে নাগরিকত্ব প্রদান করলো।

২০১৫ সালে হংকংভিত্তিক কোম্পানি ‘হ্যানসন রোবোটিক্স’ সোফিয়াকে তৈরি করে। উদ্ভাবক ডেভিড হ্যানসন দাবি করেছেন যে, সোফিয়া মানবিক অনভূতি রয়েছে এবং এটি চোহারা শনাক্ত করতে পারে। রোবোটটির সিলিকন চেহারা মানুষের চেহারার ৬২ ধরনের অভিব্যক্তি ফুটিয়ে তুলতে পারে। ফিউচার ইনভেস্টমেন্ট ইনিশিয়েটিভ কনফারেন্সে একটি সাক্ষাৎকারও দিয়েছেন সোফিয়া। সেখানে রোবটটিকে বলতে শোনা যায়, আমি হ্যানসন রোবোটিক্সের সর্বাধুনিক এবং বলিষ্ঠ রোবট। মাঝেমাঝে আমার মনে হয়, অনেকে আমার সঙ্গে সাধারণ মানুষের চেয়ে বেশি মিথষ্ক্রিয়ায় অংশ নিতে চায়।

গত সপ্তাহে এই সাক্ষাৎকার দেয়ার সময়ই খবর আসে যে, সৌদি আরব সোফিয়াকে নাগরিকত্ব দেবে। এই খবর শোনার পর সৌদি সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে রোবটটি। সৌদি আরবের সংস্কৃতি এবং তথ্য মন্ত্রণালয়ও রোবটকে নাগরিকত্ব দেয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। তবে সোফিয়াকে নাগরিকত্ব দিয়ে ভিন্ন এক বিতর্কেরও জন্ম দিয়েছে রক্ষণশীল মুসলিম দেশটি। সৌদি নাগরিকরা প্রতি বছর সরকারের কাছ থেকে মোটা অংকের অর্থ পায়। রোবটটি সেরকম কিছু পাবে কিনা বা পেলে সেই অর্থ কিভাবে খরচ করা হবে, সে সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যায়নি। আর সৌদি আরবে অনেক বিদেশি শ্রমিক বহু বছর ধরে কাজ করলেও তাদের সাধারণত নাগরিকত্ব প্রদান করা হয় না। সেখানে একটি রোবটকে এমন নাগরিকত্ব প্রদানে বিস্মিত অনেকে।

তাছাড়া, সৌদি আরবে একজন নারীকে সব সময় একজন পুরুষ অভিভাবকের সঙ্গে চলাফেরা করতে হয়। সেদেশের নারীরা আত্মীয় নন এমন পুরুষদের সঙ্গে মিশতে পারেন না, বাইরে গেলে তাঁদের অবশ্যই হিজাব পরতে হয়, মোটের উপর আইনি কাঠামোতেও পুরুষের তুলনায় তাঁদের অধিকার কম। নারী রোবট সোফিয়ার ক্ষেত্রে কি এসব নিয়ম প্রযোজ্য হবে? টুইটারে রোবটটির হিজাব ছাড়া ছবি প্রকাশ করে এমন প্রশ্ন তুলেছেন কেউ কেউ।

উল্লেখ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়নও চলতি বছরের শুরুতে একটি খসড়া প্রকাশ করেছে যাতে স্বশাসিত রোবটকে কিছুক্ষেত্রে মানুষের কাছাকাছি মর্যাদা দেয়ার প্রস্তাব রাখা হয়েছে। এই প্রস্তাব অনুমোদন করা হলে একটি রোবটের আইনি মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত হলেও মানুষের যেসব অধিকার রয়েছে, সেগুলো সেটিকে দেয়া হবে না।

ভিডিও দেখুন:-

 

Comments

comments

x