আজ বুধবার | ২২ নভেম্বর২০১৭ | ৮ অগ্রহায়ণ১৪২৪
মেনু

সড়ক দূর্ঘটনায় হেরে গেল রিমা

বাবা-মা’র স্বপ্নের মৃত্যু | ০৮ অক্টো ২০১৭ | ১০:৫৯ অপরাহ্ণ

MMMMMMMMMMMMM

পাবনা প্রতিনিধিঃ  পাবনার চাটমোহর উপজেলার পশ্চিম বোয়াইলমারী গ্রামের দিনমজুর রইস উদ্দিন ও গৃহিণী ঝর্ণা খাতুনের মেয়ে রিমা। মা-বাবা’র বুকভরা স্বপ্ন ছিল, মেয়ে পড়ালেখা শিখে চাকুরী করবে। অভাব ঘুচবে পরিবারে। ছেলে ছিল না বলে কোন আক্ষেপ ছিল না রইস উদ্দিন ও ঝর্ণা খাতুনের। বড় ও সেজ মেয়ের বিয়ে দিয়েছেন। ছোট মেয়ে এবার এসএসসি পরীক্ষা দেবে। অশিক্ষিত ও অভাবী হলেও মেয়েদের পড়াশোনা ব্যাপারে বেশ আগ্রহ ছিল তাদের। সিরাজগঞ্জের খাজা ইউনুস আলী (র.) নার্সিং কলেজের তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী ছিল রিমা। বাবা-মার স্বপ্ন পূরণের জন্য হাসিমুখে দারিদ্রতা জয় করে এগিয়ে যাচ্ছিল সে। কিন্তু ঘাতক বাসের চাপায় পিষে স্বপ্ন্ ভেঙ্গে গেছে রিমার মা-বাবা’র।

শনিবার (৭ অক্টোবর) সকালে সরেজমিন রিমার বাড়িতে যেতেই তার বাবা-মা ও স্বজনদের কান্নার শব্দে পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। অঝোর নয়নে রইস উদ্দিন ও ঝর্ণা খাতুনের দু’চোখ দিয়ে গড়িয়ে পড়ছে পানি। প্রতিবেশীরা শান্তনা দিচ্ছেন। রিমার ছবি বুকে নিয়ে বিলাপ করে মা ঝর্ণা খাতুন। বলছেন, ‘আমার মা কইরে; ও বিটি  (রিমা) কোথায় গেলে তুমি! আমার জান কইরে; ও সোনার মুখ রে, ফিরে আয় মা!’

রিমার পিতা রইস উদ্দিন জানালেন, দূর্গা পূজার ছুটি কাটানোর পর গত মঙ্গলবার (৩রা অক্টোবর) চাটমোহর থেকে এনায়েতপুরে নার্সিং ইন্সটিটিউটের হোষ্টেলে যাওয়ার পথে বেলা সাড়ে ৩টার দিকে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি-তামাই আঞ্চলিক বাস স্টপেজের কাছে সিরাজগঞ্জ থেকে এনায়েতপুরগামী একটি বাস বিপরীত দিক থেকে আসা একটি সিএনজি চালিত অটোরিক্সাকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলে রিমাসহ দুই জন মারা যায়। সকালে বিদায় দিয়েছিল বাবা-মা ও ছোট বোন। সেই বিদায় যে শেষ বিদায় হবে সেটা কেউ মানতে পারছেন না। পরিবারের সবার আহাজারিতে কেউ চোখের পানি ধরে রাখতে পারেনি। অভাবী একটি পরিবারের স্বপ্ন ভেঙ্গে এখন তারা দিশেহারা।

রইস উদ্দিন বলেন, ‘অনেক সময় মেয়েকে ঠিক মতো টাকা পাঠাতে পারতাম না; তবুও মেয়ে (রিমা) কোন সময় রাগ করেনি। ও বলতো বাবা আর কয়েক মাস পরে আমি তোমাদের টাকা পাঠাতে পারবো। আমার সব স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল। আমার কপালে সুখ সইলো না!’

রিমার খালাতো ভাই জুলহাস হোসেন জানালেন, তাদের জমিজমা বলতে শুধু বাড়ি টুকু। দিন মজুরের কাজ করে কোনোরকমে সংসার চলে তাদের। কষ্টের মাঝেও রিমাকে নার্সিং কলেজে পড়ালেখা করাতেন। স্বপ্ন দেখতেন মেয়ে চাকুরী করে সংসারের হাল ধরবে। কিন্তু সব স্বপ্ন শেষ হয়ে গেল। বাড়িটিতে এখন চলছে শোকের মাতম।

Comments

comments

x