আজ মঙ্গলবার | ২৪ অক্টোবর২০১৭ | ৯ কার্তিক১৪২৪
মেনু

ঘূর্ণিঝড় মারিয়ার আঘাতে নিহত ৭

মানচিত্র ডেস্ক | ২১ সেপ্টে ২০১৭ | ৩:৩২ পূর্বাহ্ণ

ঘূর্ণিঝড় মারিয়া ছবি- সংগৃহীত

ঘূর্ণিঝড় মারিয়া বুধবার পুয়েত্রো রিকোতে আঘাত হেনেছে। স্থানীয় সময় সকালে ঘন্টায় বাতাসের ১৫৫ মাইল গতিবেগ নিয়ে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড়ে সমূলে উপড়ে গেছে গাছ, বিধ্বস্ত হয়েছে দ্বীপটির দুই-তৃতীয়াংশ এলাকা। সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড়ে ডমিনিকাতে সাতজন নিহত হয়েছে। গত ৮০ বছরের মধ্যে যুক্তরাষ্ট্র উপকূলে আঘাত হানা ঘূর্ণিঝড়ের মধ্যে মারিয়া চারমাত্রার শক্তিশালী ঝড় বলে জানিয়েছে সিএনএন।

পুয়েত্রো রিকো সরকারের মুখপাত্র কার্লোস মারস্যাডার বলেছেন, ‘এটা পুরোপুরি বিধ্বস্ত অবস্থা। অবকাঠামোর দিক থেকে পুয়েত্রো রিকো একইরকম থাকছে না। এটা ইতিহাসে জায়গা করে নেওয়ার মতো কিছু একটা।’ অ্যান্টিগুয়া ও বারবুডার প্রধানমন্ত্রী গ্যাস্টন ব্রাউন জানিয়েছেন, মারিয়ার আঘাতে ডমিনিকাতে সাতজন নিহত হয়েছে। তিনি ডমিনিকার প্রধানমন্ত্রী রুজভেল্ট স্কেরিটের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করছেন। মঙ্গলবার রুজভেল্ট জানিয়েছিলেন ঘূর্ণিঝড়ে তার বাড়ির ছাদ উড়ে গেছে।

যুক্তরাষ্ট্রের ন্যাশনাল হারিকেন সেন্টার জানিয়েছে, স্থানীয় সময় বুধবার সকালে পুয়েত্রো রিকোর ইয়াবুকোয়া শহরের কাছে ঘন্টায় ১৫৫ মাইল বাতাসের বেগ নিয়ে আঘাত হানে মারিয়া। সকাল ১০টার দিকে ঘূর্ণিঝড়টি কিছুটা দুর্বল হলে এর বাতাসের বেগ ঘন্টায় ১৪৫ মাইলে নেমে আসে। তবে এখনো এটি চারমাত্রার ঘূর্ণিঝড় রয়েছে এবং এর প্রচণ্ড বেগ বাড়ির ছাদ পর্যন্ত উপড়ে ফেলার ক্ষমতা রাখে। ইতিমধ্যে ঘূর্ণিঝড়ের আঘাতে দ্বীপটিতে থাকা জাতীয় আবহাওয়া বিভাগের রাডার ভেঙ্গে গেছে।

বিভিন্ন স্থান থেকে সাহায্য চেয়ে জরুরি সেবা বিভাগে ফোন করলেও কর্মীরা দুর্যোগস্থলে যেতে পারছে না। কার্লোস মারস্যাডার জানিয়েছেন, বাতাসের বেগ ঘন্টায় ৫০ মাইলের বেশি থাকলে উদ্ধারকর্মীদের পক্ষে বাইরে যাওয়া সম্ভব নয়। অবশ্য পুয়েত্রো রিকো সরকারের পক্ষ থেকে এর আগেও বিষয়টি জানিয়ে সতর্ক করা হয়েছিল।

 

Comments

comments

x