আজ রবিবার | ১৯ নভেম্বর২০১৭ | ৫ অগ্রহায়ণ১৪২৪
মেনু

চিরনিদ্রায় শায়িত আবদুল জব্বার

মানচিত্র ডেস্ক | ৩১ আগ ২০১৭ | ১:৪১ অপরাহ্ণ

আবদুল জব্বার

স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্রের কণ্ঠশিল্পী আবদুল জব্বারকে রাজধানীর মিরপুরে শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে।  বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার পর গুণী এই শিল্পীর দাফন সম্পন্ন হয়। এর আগে সকালে রাজধানীর বারডেম হাসপাতালের হিমঘর থেকে আবদুল জব্বারকে নেওয়া হয় আগারগাঁওয়ে বাংলাদেশ বেতার কেন্দ্রে। এরপর সর্বস্তরের মানুষের শ্রদ্ধাঞ্জলির জন্য বেলা সোয়া ১১টায় তাকে নেওয়া হয় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে।

সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত এ শ্রদ্ধাঞ্জলি পর্বের শুররুতে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে শ্রদ্ধা জানানো হয়। পরে ঢাকা জেলার পক্ষ থেকে গার্ড অব দেওয়া হয় মুক্তিযোদ্ধা শিল্পী আবদুল জব্বারকে। এসময় শহীদ মিনারে তাকে শ্রদ্ধা জানাতে ছুটে আসেন সংষ্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর, তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, জনপ্রিয় ধারাভাষ্যকার গাজী মাজহারুল ইসলামসহ অনেকে।

এরপর একে একে বিভিন্ন শিক্ষা, সামাজিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রদ্ধা জানায়। শিল্পীকে এক নজর দেখতে এবং শ্রদ্ধা জানাতে ঢাকার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসেন হাজারও ভক্ত। বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের অঙ্গসংগঠনগুলোও। ব্যক্তিগতভাবেও শত শত মানুষ প্রতিকূল আবহাওয়া অতিক্রম করে শিল্পীর মরদেহে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন।

রাজনৈতিক দলগুলোর মধ্যে ছিল আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জাসদ, বাসদ, ওয়ার্কার্স পার্টি। শ্রদ্ধা জানায় ছাত্র মৈত্রী, ছাত্র ইউনিয়ন, যুবমৈত্রী, ছাত্রলীগ প্রভৃতি সংগঠন। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিল্পীরা জানাতে ভুলেননি। এ ছাড়া তথ্য মন্ত্রণালয়, সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়, খাদ্য মন্ত্রণালয়, বাংলা একাডেমি, শিল্পকলা একাডেমি, জাতীয় জাদুঘর, কেন্দ্রীয় গণগ্রন্থাগার, উদীচী, খেলাঘর ও গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন শিল্পীর প্রতি শ্রদ্ধা জানায়।

এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদে দ্বিতীয় জানাজা শেষে তাকে মিরপুর বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে দাফন করা হয়। বুধবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুবরণ শিল্পী আবদুল জব্বার।

 

Comments

comments

x