আজ বৃহস্পতিবার | ২০ জুলাই২০১৭ | ৫ শ্রাবণ১৪২৪
মেনু

দামুড়হুদায় প্রতিবন্ধী সন্তানকে কুপিয়ে হত্যা করলেন মা

মানচিত্র ডেস্ক | ০৯ জুন ২০১৭ | ১:১২ অপরাহ্ণ

দামুড়হুদা

চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার গোবিন্দপুর এলাকায় আলামিন নামে ১২ বছরের এক প্রতিবন্ধী শিশুকে কুপিয়ে হত্যা করেছে তার মা। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ওই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। রাতেই হত্যাকারী মা হাসিনা বেগমসহ তিনকে আটক করেছে পুলিশ। নিহত আলামিন ওই গ্রামের আজিবর রহমানের ছেলে। শুক্রবার দুপুরে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা মর্গে প্রেরণ করেছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ জানায়, বৃহস্পতিবার রাতে হাসিনা বেগম তার তিন সন্তান নিয়ে নিজ ঘরে ঘুমিয়েছিলেন। রাত ১১টার দিকে হাসিনা চিৎকারে করে তার সন্তানকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রচার করতে থাকেন। এ হত্যাকাণ্ডে গ্রামের দুইজন জড়িত বলেও প্রচার করতে থাকেন তিনি। তবে গ্রামবাসী বলছে জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে নিজ সন্তানকে হত্যা করেছেন পাষণ্ড ওই মা।

খবর পেয়ে রাতেই দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আবু জিহাদ ফকরুল আলম ঘটনাস্থলে ছুটে যান এবং হত্যাকাণ্ডে জড়িত সন্দেহে নিহত শিশুর মা হাসিনা বেগমসহ তিনজনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। পরে জিজ্ঞাসাবাদে নিহত শিশুর মা হাসিনা বেগম হত্যার কথা স্বীকার করে বলেন, আমার সন্তানটি প্রতিবন্ধী হওয়ায় আমাকে সব সময় জ্বালাতন করতো। তার যন্ত্রণা সইতে না পেরে আমিই তাকে হত্যা করেছি।

হত্যায় ব্যবহৃত বটি বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে এবং হত্যাকারী মায়ের নামে মামলা করা হয়েছে। শনিবার তাকে আদালতে হাজির করা হবে। শুক্রবার সকালে চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার নিজাম উদ্দীন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন এবং গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলেন। পরিদর্শন শেষে তিনি সাংবাদিকদের জানান, প্রাথমিকভাবে শিশু আলামিন হত্যাকাণ্ডে তার মা জড়িত বলে সত্যতা মিলেছে। বিষয়টি নিয়ে আরও তদন্ত করা হবে।

Comments

comments

x