আজ বৃহস্পতিবার | ২০ জুলাই২০১৭ | ৫ শ্রাবণ১৪২৪
মেনু

মওদুদ সাহেব, ‘৮২ সালের উচ্ছেদ ভুলি নাই: শাওন মাহমুদ

মানচিত্র ডেস্ক | ০৮ জুন ২০১৭ | ১:৫৮ অপরাহ্ণ

SSSSS

আইনি লড়াইয়ে হারের পর রাজধানীর গুলশান এভিনিউয়ের ১৫৯ নম্বর হোল্ডিংয়ে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদের বাড়িটির দখল পুলিশের সহায়তায় বুঝে পেলো রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। এ সময় তিনি বলেন, ‘কী করার আছে, ফুটপাতে শুয়ে থাকব।’ এই ঘটনায় মওদুদ আহমেদকে উদ্দেশ্যে করে বৃহস্পতিবার একটি ফেইসবুক পোস্ট প্রদান করেন শহীদ আলতাফ মাহমুদের কন্যা শাওন মাহমুদ। ছবিসহ প্রকাশিত সেই পোস্ট পাঠকের উদ্দেশ্যে হুবহু তুলে ধরা হল-

অনেক শরীর খারাপেও এই ছবিটা আমাকে সকাল সকাল সোজা করে দাড়িয়ে দিলো। দেশ স্বাধীন হবার পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শহীদ পরিবারদের বেশ কিছু বাড়ি নামমাত্র অর্থের বিনিময়ে উপহার দিয়েছিলেন। তার মধ্যে আমাদের বাড়িটি ছিল ১ নং মালিবাগ।

‘৮২ সালের ফেব্রুয়ারিতে একদিনের নোটিশে সে বাড়িটি থেকে আমাদের উচ্ছেদ করা হয়। একটা কৃষ্ণ চূড়া গাছের নীচে সুটকেসের ওপর মা বসিয়ে রেখেছিলেন আমায়। বসে বসে পুলিশের তাণ্ডব দেখেছিলাম সেদিন। দোতলা থেকে বাবার ব্যাগ ফেলছিল ওরা। এলপি রেকর্ডগুলা চূর্ণ বিচূর্ণ করে ফেলছিল বারান্দা থেকে। নীচের তলার সংগীত স্কুলের হারমোনিয়াম তবলা তানপুরা উঠোনের এখান ওখানে ছুড়ে ছুড়ে ফেলছিল ওরা। আমি জানতাম না রাতে কোথায় থাকবো সেদিন।

সেই উচ্ছেদ প্রকল্পের প্রধান উদ্যোক্তা মওদুদকে স্যুট পরে মাধবীলতা গাছের নীচে দাঁড়িয়ে তার উচ্ছেদ হওয়া বাসার সামনে বলতে শুনলাম যে তিনি ফুটপাতে থাকবেন। হা হা হা মওদুদ সাহেব ‘৮২ সালের উচ্ছেদ ভুলি নাই। ভুলবো না। ইটটি মারিলে পাটকেলটি খাইতে হয়। ওহ্ আরেকটা কথা, সেদিন আমরা যদিও জানতাম না কোথায় থাকবো তারপরও ফুটপাতে থাকবার কথা ভাবিনি। প্রতিবেশীর খালি বাসাটা তাৎক্ষনিক ভাড়া নিয়ে নিয়েছিলাম আমরা।

আমি একশো বছর বাঁচবো।
হিসাব নিয়ে তারপর যাবো।

(শাওন মাহমুদের ফেইসবুক প্রোফাইল থেকে নেয়া)

 

Comments

comments

x