আজ বৃহস্পতিবার | ২১ সেপ্টেম্বর২০১৭ | ৬ আশ্বিন১৪২৪
মেনু

সুনামগঞ্জের পাকনার হাওরের বাঁধও ভেঙে গেছে

মানচিত্র ডেস্ক | ২৪ এপ্রি ২০১৭ | ৬:০৬ পূর্বাহ্ণ

সুনামগঞ্জ

সুনামগঞ্জের পাকনার হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ ভেঙে পানি ঢুকতে শুরু করেছে। সোমবার ( ২৪ এপ্রিল) ভোরে গজারিয়া পয়েন্টে ফসল রক্ষা বাঁধটি ভেঙে যায়। এরপর পানিতে প্রায় ৯ হাজার হেক্টর ফসলি জমি তলিয়ে গেছে। এটি ছিল জেলার সর্বশেষ সুরক্ষিত একটি বড় হাওর। সুনামগঞ্জ কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক জাহিদুল হক জানান, পানির প্রবল বেগ থাকায় কৃষকেরা শত চেষ্টা চালিয়েও বাঁধটি রক্ষা করতে পারেননি।

স্থানীয়রা জানান, সুনামগঞ্জের সবগুলো হাওরের ফসল অকাল বন্যায় তলিয়ে গেলেও শনির ও পাকনার হাওরে এতদিন আঘাতটা লাগেনি। এলাকাবাসী জানান, পাগনার হাওরটিতে সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলা ও নেত্রকোনার খালিয়াজুরি উপজেলার অনেক কৃষকদের বোরো জমি রয়েছে। চৈত্রের শেষে সিলেট অঞ্চলে বোরো ফসলের ওপর বিপর্যয় শুরু হলে জামালগঞ্জের ফেনারবাঁক ইউনিয়নের পাগনার হাওরের ১০ হাজার হেক্টর জমির বোরো ফসল রক্ষার লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন এলাকাবাসী। তবে গত এক মাস ধরে সুনামগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের কোনো কর্মকর্তা বাঁধে ছিল না জানিয়েছেন ফেনারবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু তালুকদার।

এলাকাবাসী আরো জানান, শতাধিক শ্রমিক রোববার রাতেও বাঁধে কাজ করেছেন। বাঁধ রক্ষায় ৫০ জন পাহারাদারও নিয়োগ ছিলেন। কিন্তু সোমবার ভোরে বৃষ্টির সময় উরারবন্দ বাঁধ ভেঙে হাওরে পানি ঢুকতে শুরু করে। গ্রাম পুলিশ, শ্রমিক ও পাহারাদারদের নিয়ে শেষ চেষ্টা করেও বাঁধ রক্ষা করা যায়নি।

ফেনারবাঁক ইউপি চেয়ারম্যান করুনা সিন্ধু তালুকদার বলেন, হাওরের এত বড় দুর্যোগে পাউবোর কোনো অফিসারকে বাঁধে পাওয়া যায়নি। পাগনার হাওরের ধান সবে মাত্র পাকতে শুরু করেছে। এরই মধ্যে বাধ বেঙ্গে সব তলিয়ে যায়। সুনামগঞ্জ জেলায় এ বছর ২ লাখ ২৩ হাজার ৮৫ হেক্টর জমিতে বোরো ধানের আবাদ হয়। ৪২টি হাওরের ফসল রক্ষায় ৬৮ কোটি টাকা ৮০ লাখ টাকার বাঁধের কাজ চলছিল।

জেলা পানি উন্নয়ন বোর্ড সুনামগঞ্জের বৃহৎ ৩৭টি হাওরসহ মোট ৪২টি হাওরে ২০ কোটি ৮০ লাখ ব্যয়ে ২২৫টি পিআইসি (প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি) ও ৪৮ কোটি টাকা ব্যয়ে ৭৬টি প্যাকেজে ঠিকাদার দিয়ে বোরো ফসল রক্ষা বাঁধ নির্মাণ করেছিল। গতকাল রোববার ভোরে সুনামগঞ্জের শনির হাওরের বাঁধ ভেঙে পানি প্রবেশ করে। এতে হাওরের ৪০ শতাংশ জমি পানিতে নিমজ্জিত হয়। আর আজ সোমবার পাকনার হাওরও ডুবে গেছে।

 

Comments

comments

x