আজ রবিবার | ২৪ সেপ্টেম্বর২০১৭ | ৯ আশ্বিন১৪২৪
মেনু

ঐক্যবদ্ধ জর্জিয়া যুবলীগই ফিরিয়ে আনবে জর্জিয়ার আওয়ামী পরিবারের ঐক্য !

হাসান সুহেল চৌধুরী | ১২ এপ্রি ২০১৭ | ১০:২৮ অপরাহ্ণ

SUHEL AL

জর্জিয়ার আওয়ামী পরিবারের ব্যাপ্তি মূলত জর্জিয়া আওয়ামীলীগ ও জর্জিয়া যুবলীগকেকে ঘিরেই, তাই জর্জিয়া আওয়ামী পরিবারের মধ্যে সৃষ্ট বেশীরভাগ জটিলতা সেই যুবলীগ কে ঘিরেই। জর্জিয়া যুবলীগকে কেন্দ্র করেই জর্জিয়া আওয়ামী পরিবার দৃশ্যত দুটি ভাগে বিভক্ত। আর ঠিক একই কারনে, অনেক নতুন প্রজন্মের অনেকেই নিজেরা আওয়ামীলীগ মতাদর্শী হয়েও নিজেদের দূরে সরিয়ে রাখতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করছেন এবং তাতে জর্জিয়ার আওয়ামী পরিবার তথা যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী পরিবার বঞ্চিত হচ্ছে নতুন নেতৃত্ব সৃষ্টি থেকে। তাই বর্তমান প্রেক্ষাপটে, ঐক্যবদ্ধ জর্জিয়া যুবলীগই জর্জিয়ার আওয়ামী পরিবারের মধ্যে ঐক্যবদ্ধতা ফিরিয়ে আনতে পারবে বলেই আমার বিশ্বাস।

আপনারা নিশ্চই জানেন, জর্জিয়া যুবলীগের দুইটি কমিটি রয়েছে, এর মধ্যে একটি নাহিদ-ইলিয়াসের নেতৃত্বে পূর্নাংগ কমিটি অন্যটি মোশারফ-সুমনের নেতৃত্বে আহবায়ক কমিটি। শুরু থেকেই মোশারফ -সুমনের আহবায়ক কমিটি অনেকটা নিষ্ক্রিয় হলেও নাহিদ-ইলিয়াসের নেতৃত্বের কমিটি গঠনের পর থেকেই জোরালো ভাবেই তাদের কার্যক্রম চালিয়ে আসছিলো, কিন্তু গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোকদিবসের পর থেকে তাদেরকেও আর কোনো অনুস্টান করতে দেখা যায় নি।

যুক্তরাষ্ট্র আওয়ামী পরিবারের প্রাণপুরুষ, সাবেক যুক্তরাষ্ট্র যুবলীগ সভাপতি জনাব মিসবাহ আহমেদের আওয়ামীলীগে যোগদানের প্রভাব যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিটি স্টেটের যুবলীগের মধ্যে পড়ে। যার ফল স্বরুপ জর্জিয়া যুবলীগের মধ্যেও এক ধরনের নিষ্ক্রিয়তা লক্ষ করা যায়। কিন্তু যুবলীগের এই নিষ্ক্রিয়তা সত্বেও জর্জিয়ার আওয়ামী পরিবারের নেতৃত্বের বিভাজন দূর করা সম্ভব হয়ে উঠে নি। এখানে উল্লেখ্য, জনাব জনাব তরিকুল হায়দারের নেতৃত্বে গঠিত আহবায়ক কমিটি মেয়াদোত্তীর্ন হলেও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জনাব ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক জনাব হারুনুর রশীদের নির্দেশে আহবায়ক কমিটি তাদের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

জর্জিয়া আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক জনাব মাহমুদ রহমান বেশ কিছুদিন ধরেই দুই যুবলীগের একত্রীকরণের মাধ্যমে জর্জিয়া আওয়ামী পরিবারের আভ্যন্তরীণ জটিলতা দূর করার চেস্টা করে আসছেন। এ লক্ষে তিনি দফায় দফায় সবার সাথে নিজ উদ্যোগে দুই যুবলীগের সবার সাথে আলোচনা চালিয়ে আসছেন। তার ঐকান্তিক চেস্টার ফলস্বরুপ সবার মতামত অনুযায়ী আগামী ২৩ এপ্রিল রোববার, স্থানীয় মনসুন মাসালা” রেস্টুরেন্টে জর্জিয়া যুবলীগের সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির ডাক দেওয়া হয়েছে। সেদিনই জর্জিয়া যুবলীগের সম্মেলনের ডাক দেওয়া হবে।

জর্জিয়ার আওয়ামী পরিবারের একজন সামান্য সদস্য হিসেবে আমি আশা করি আগামী ২৩ এপ্রিল, রোববার, মনসুন মাসালা রেস্টুরেন্টে জর্জিয়ার আওয়ামী কর্মীদের মিলন মেলা বসবে। জর্জিয়ার আওয়ামী পরিবারের একজন নগন্য কর্মী হিসেবে আপনাদের কাছে আমার বিনীত অনুরোধ, সব ধরনের ভুল বুঝাবুঝির অবসান ঘটিয়ে ২৩ তারিখের অনুস্টানে উপস্তিত থেকে প্রমান করে দেন, সংগঠিত আওয়ামীলীগ সবসময়ই শক্তিশালী আওয়ামীলীগ। “ব্যাক্তির চেয়ে দল বড়” – এই স্লোগানে উদ্ভূত হয়ে ঐক্যবদ্ধ জর্জিয়া আওয়ামী পরিবার গঠনে এগিয়ে আসি।

Comments

comments

x